1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
অবৈধ সম্পদ অর্জনে সাবেক ওসি হরেন্দ্র নাথ সরকার ও তার স্ত্রী কৃষ্ণা রানীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা! এবার ভোলায় পেঁয়াজ চাষে ইউপি চেয়ারম্যানের নতুন চমক! সকালে খালি পেটে পানি পান করলে যেসব রোগ থেকে মুক্তি মিলবে? এবার পেঁয়াজের কেজি পৌনে তিন টাকা! অপরাধ না করেও ৫ বছরে জেল খাটার পর মুক্তি পেলেন আরমান! ট্রাম্প প্রশাসন ছিল শান্তি বিরোধী তাই নীতি বদলান: বাইডেনকে ইমরান খান এবার মুসলিম নারী চিকিৎসকদের হিজাব পরার অনুমতি মিলল যুক্তরাজ্যের হাসপাতালে গত ২০ বছর ধরে পরে থাকা আল্লাহর নাম সংরক্ষণ করছেন হোসনে আরা মাটির ময়না ছবির আনু এখন মিডিয়া ছেড়ে ধর্মের পথে ১৯৭১ এর মতোই ভারত করোনার বিপদে আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে:পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এবার নাতির ধ’র্ষণের দায়ে বৃদ্ধের সঙ্গে শিশুর বি’য়ে: তদন্তের নির্দেশ

  • প্রকাশিত: ০৪:২৩ pm | মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৬৩ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা:
এবার নাতির ধ’র্ষণের দায়ে বৃদ্ধের সঙ্গে শিশুর বি’য়ে: তদন্তের নির্দেশ।
জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে নাতির ধ’র্ষণের দায়ে ৮৫ বছর বৃদ্ধ দাদার সঙ্গে ধর্ষ’ণের শিকার ১১ বছরের কিশোরীর বি’য়ে দেওয়ার ঘটনা তদন্ত করে

গত রোববার (২৯ নভেম্বর) মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।বিষয়টি নজরে আনার পর মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এ আদেশ দেন বলে জানান ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল

এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।
তিনি আরও জানান, একটি শিশুর যে বিয়ে দেওয়ার ঘটনা এসেছে সেটি আমরা নজরে নিয়ে এসেছিলাম। আদালত

জামালপুরের ডিসি, এসপি ও দেওয়ানগঞ্জের ওসিকে বলেছেন ঘটনাটি তদন্ত করে একটি প্রতিবেদন আগামী রোববারের মধ্যে দেওয়া হয়।গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, জামালপুরের

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চর আমখাওয়া ইউপির বয়ড়াপাড়া গ্রামের একটি মহিলা মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীর সঙ্গে একই এলাকার সুরমান আলীর বখাটে ছেলে শাহিনের শারীরিক স’ম্পর্ক হয়। এক পর্যায়ে

ওই শিক্ষার্থী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে কবিরাজি চিকিৎসায় মেয়েটির গর্ভপাত ঘটানো হয়।বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় ১৬ নভেম্বর স্থানীয় ইউপি সদস্য ও স্থানীয় মাতব্বররা এ বিষয়ে সালিশ বৈঠক করেন।

সালিশে ধর্ষক শাহিনকে ১০টি দোররা মেরে তার কর্মকাণ্ডের দায় চাপিয়ে দেওয়া হয় ৮৫ বছরের বৃদ্ধ দাদার ওপর। পরে দাদা মহির উদ্দিনের সঙ্গে ভুক্তভোগী ১১ বছরের কিশোরীর বিয়ে দেন স্থানীয় মাতব্বরেরা।৮৫ বছরের বৃদ্ধ মহির উদ্দিন ঠিকমতো কথা

বলতে পারেন না, চোখেও ঝাপসা দেখেন। তিনি সাত সন্তানের বাবা। তার দুই স্ত্রী অনেক আগে মা’রা গেছেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তার ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে

বিয়ের ব্যবস্থা করেছে স্থানীয় চর আমখাওয়া ইউপি সদস্য নাদু মেম্বারসহ আরও কয়েকজন।চর আমখাওয়া ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন নাদুও বিষয়টি স্বীকার করে জানান, মুরব্বিদের নিয়ে সালিশ

করা হয়। সালিশে অনৈতিক কাজ করায় শাহিনকে ১০টি দোররা মারা হয়। পরে স্থানীয়দের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধ’র্ষকের দাদার সঙ্গে কিশোরীটির বি’য়ে দেওয়া হয়।
চর আমখাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর

রহমান আকন্দও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।দেওয়ানগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »