1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
অসহায় ও গৃহহীন ৬৬ হাজার পরিবারকে ঘর দিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গরিব তবুও দাদার শেষ ইচ্ছা পূরনে ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা দিয়ে হেলিকপ্টারে বিয়ে বাজারে জমিদাতা পিতার জামে মসজিদের মিনার ভেঙ্গে দিল সন্তান! এবার করোনা ধ্বংসকারী নাকের স্প্রে আবিস্কার করল বাংলাদেশ রাতে ভাত না খেয়ে রুটি খাওয়ার উপকারিতা কারাগারে নারীর সাথে কয়েদির সময় পার : ৩ জনকে প্রত্যাহার ভারত থেকে ভ্যাক্সিন যারা নিয়ে আসছে তাদেরকেই আগে প্রয়োগ করা হোক: মুফতি ফয়জুল করিম এবার ধর্মীয় আলোচনায় এলো বাধা: তৌহিদী জনতার স্লোগানে প্রকম্পিত ময়মনসিংহ এবার আশুলিয়ায় শিশু ধ’র্ষণের অভিযোগে এক মাদ্রাসার অধ্যক্ষ গ্রেপ্তার এবার রংপুরে নির্মিত হচ্ছে ‘আল্লাহু লেখা স্তম্ভ’

বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে মামুনুল হকের পরিণতি খুব খারাপ হবে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী

  • প্রকাশিত: ০২:৩৩ pm | বুধবার ২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১২০ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা:
বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে মামুনুল হকের পরিণতি খুব খারাপ হবে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী।
হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে বলেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তা না হলে পরিণতি ভালো হবে না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।মঙ্গলবার

(১ ডিসেম্বর) বেলা ৩টার দিকে নগরীর মৎস্য ভবন থেকে শুরু হয়ে শাহবাগ হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ছবির হাট পর্যন্ত এক মানববন্ধনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এসব কথা বলেন।বঙ্গবন্ধু এবং সংবিধান

অবমাননার অভিযোগে হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী এবং যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে ওই মানববন্ধনের আয়োজন করে সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং পেশাজীবীদের

৬০টি সংগঠন।মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘মামুনুল হককে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে। না হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মানুষ তার

জবাব দেবে। এর পরিণাম ভালো হবে না।দৃষ্টান্তমূলক পরিণামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।’ মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে একটি দেশ এবং সংবিধান পেয়েছি। যার জন্ম না হলে স্বাধীন বাংলাদেশ হতো না সেই সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমান যে সংবিধান

এনেছেন একটি বিশেষ সাম্প্রদায়িক শক্তি সেই সংবিধান বিনষ্ট করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে।এরা কারা? যারা স্বাধীনতা চায়নি। স্বাধীনতার পর এই ভাস্কর্য বিভিন্ন স্থানে স্থাপিত হয়েছে। হঠাৎ করে এ ধরনের উক্তি কীসের লক্ষ্মণ? কার ইঙ্গিতে হচ্ছে? এটা

কারও ব্যক্তিগত খাম-খেয়ালি নাকি সুপরিকল্পিত সেটা ভালোভাবে ক্ষতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে হবে। মন্ত্রী বলেন, আমি আগেও বলেছি এটা জনগণের সরকার। আমাদের ক্ষমতার উৎস বাংলার জনগণ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।তাই কেউ যদি মনে

করেন এসব কথা বলে পার পেয়ে যাবেন, তা নয়। স্বাধীনতাকামী মানুষরা কলাগাছ নয়, মান্দার গাছ। কেউ ইচ্ছে করে পিঠ ঘষতে আসলে তার পিঠ উঠে যাবে। দেশের মানুষ ধর্মপ্রাণ মুসলমান। দেশে কিছু লোক ধর্ম ব্যবসায়ী হয়ে ইসলাম ধর্মের অবমাননা এবং অপব্যাখ্যা করবেন আর ইসলাম প্রিয়

মানুষ কিছু বলবে না, এটা হতে পারে না।ধর্ম কারও কাছে লিজ দেওয়া হয়নি। ধর্মের রক্ষক আপনারা কয়েকজন নন। যারা ইসলামকে বিশ্বাস করে তারাই ধর্মের রক্ষক। আমি বিশ্বাস করি অন্য ধর্মাবলম্বীরাও কখনও ইসলামের অবমাননাকর কোন

উক্তি সহ্য করে না। এই ধরনের উক্তি প্রত্যাহার করতে হবে। যদি প্রত্যাহার না করেন, দেখেন নাই ৫২ সালে তার জবাব বাংলার মানুষ কীভাবে দিয়েছিল। ৭১ সালে ধর্ম ব্যবসায়ীদের জবাব কীভাবে দিয়েছিল। দয়া করে ইতিহাস বুঝতে চেষ্টা করুন।

ইতিহাসের প্রতি সম্মান জানান।
মন্ত্রী আরও বলেন, ভাস্কর্য মুসলিম অধ্যুষিত সব রাষ্ট্রে আছে। আপনাদের সাধের পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং সৌদি আরবসহ প্রায় সবগুলো রাষ্ট্রে আছে। আপনারা

সেখানে কোনও কথা বলেন না। হঠাৎ করে বাংলাদেশের প্রতি কেন আপনাদের দৃষ্টি হলো? এসব দলবাজির জবাব জনগণ রাজপথেই দেবে। তার পরিমাণ ভালো হবে না। অতীতেও হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »