1. skarman0199094@gmail.com : Sk Arman : Sk Arman
  2. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  3. alamran777777@gmail.com : Md. Imran : Md. Imran
  4. Mijankhan298@gmail.com : Md Mijankhan : Md Mijankhan
  5. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  6. rujina666666@gmail.com : Rujina Akter : Rujina Akter
  7. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  8. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
সারাদেশে শাটডাউনের প্রস্তুতি: আগের চেয়ে বিধিনিষেধ আরও কঠোর হবে’ যেকোনো সময় সিদ্ধান্ত: লকডাউন নিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সবপ্রকার অনলাইন গেম ব’ন্ধ হচ্ছে !! কৃষ্ণসাগরে আবার কোনো উসকানি দিলে ব্রিটেনের বিরুদ্ধে নিশ্চিত এবং কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে: রাশিয়া মা অন্যের বাড়িতে কাজ করছিলেন, হঠাৎ খবর এলো পাটক্ষেতে তরুণীর মেয়ের লা’শ হিন্দু সুশান্ত ইসলাম গ্রহণ করে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন! বিয়ের কিছুদিন পর জানলেন প্রেমিকার গ’র্ভের ছেলেটি তার কাকা! ম্যানেজার একে একে সব বোনের স্বামী হলেন! চীনে শুরু হচ্ছে ১০ দিনব্যাপী কুকুরের মাংস খাওয়ার উৎস কলেজ পড়ুয়া মিমের সারা শরীরে নখের আঁচড়, লা’শের মুখে কামড়ের দাগ

৪৬ বছর আগে হয়েছিল লাশ দাফন অতচ এখনো অক্ষত! ছবি ভাইরাল

  • প্রকাশিত: ০৪:২০ am | রবিবার ৩০ মে, ২০২১
  • ২০১ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা: পটুয়াখালীর দশমিনায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে কবরের মাটি সরে গিয়ে ৪৬ বছর আগে দাফনকৃত একটি লা’শ উদ্ধার হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে। লাশ দেখতে ভির জমিয়েছেন বিভিন্ন বয়সের

মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে লাশের ছবিটি। লাশ উদ্ধারের পর আ’বার দাফনের আগে দোয়ায় অংশ নিতে বিভিন্ন উপজেলা থেকে ছুটে আসেন শত শত মানুষ। লা’শ উদ্ধারের

ঘটনাটি ঘটে উপজেলার চরঘূণি এলাকার হাতেম আলী ফকিরের বাড়িতে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত মঙ্গল এবং বুধবারের ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে উপজেলার নদী তীরবর্তী এলাকা নদীতে বিলীন হয়ে যায়। সেই সাথে নদী ভাঙ্গনে

উপজেলার চরঘূণি এলাকায় বড়াগৌরঙ্গ নদীর তীরের হাতেম আলী ফকির বাড়ির পারিবারিক ক’বরস্থানও নদীর ভাঙ্গনে পড়ে।
নদীর ভাঙ্গনে ওই এলাকার ফকির বাড়ির পারিবারিক কবরস্থান ভেঙ্গে লাশের একাংশ

বেড়িয়ে আসে। এই নিয়ে শুক্রবার বিকেলে থেকে ওই এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। লাশের খবর ছড়িয়ে পড়লে উপজেলাসহ পা’শের উপজেলাগুলো থেকে মানুষ একনজর দেখার জন্য শুক্রবার

থেকেই ভির করেন ওই ওই এলাকায়।
এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায় লা’শের ছবিটি। বিভিন্ন মানুষ ফেসবুকে ছবিটি আপলোড দিয়ে লাশকে মোমিন বান্দা দাবি করে বিভিন্ন

লেখা পোস্ট করেন।শনিবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে কথা হয় ওই বাড়ির রবিউল ইসলামের সাথে। তিনি জানান, লাশটি তাদের বা’ড়ির হাশেম ফকিরের। তার দাবি হাশেম ফকির ৪৫ থেকে ৪৬ বছর

আগে মারা গিয়েছিলেন।তিনি আরো জানান, হাশেম ফকির তাদের বাড়ির হাতেম আলী ফকির চিশতিয়া-এর ভক্ত ও সম্পর্কে চাচাতো ভাই ছি’লেন। অন্যদিকে ওই এলাকার ৯০ বছরের বৃদ্ধা মো: হাবিবুর রহমান (চন্দন মাস্টার) জানান, মরহুম

আইনুউদ্দিনের ছেলে হাশেম ফকির। হাশেম ফকির সত্তরের বন্যার পরে মা’রা গেছেন। হাশেম ফকিরের বাবা আইনউদ্দিন ফকির সত্তরের বন্যার আগে মারা গেছেন।হাশেম ফকিরের দুই ছেলে খালেক এবং বারেক। তবে লা’শটি হাশেমের কিনা আমি জানি না। ওই

লাশটি হাশেমের বাবা আইনুউদ্দিনের কিনা সেটাও নিশ্চিত নয় বলে তিনি জানান।তার বক্তব্য অনুযায়ী লাশটির পরিচয় নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। হা’শেম ফকিরের ছেলে মো: খালেক জানান, লাশটি তার বাবার। তিনি ১৯৭৫ সালে দিকে মারা গিয়েছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, জৈনপুরী পীর সাহেবের নির্দেশে লাশটির শরীরের কোনো অংশ খুলে না দেখে শুধু মিলাদ দিয়ে শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় পারি’বারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।রনগোপালদী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এটিএম আসাদুল হক নাসির
সিকদার জানান, লাশ পাওয়ার খবর

শোনার পর তিনি পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছেন।দশমিনা কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম মাওলানা রেজাউল করিম জানান, আল্লাহ’র অলি, আল্লাহ তালার বান্দা, হাফেজ ও ইমানদার ব্যক্তি হলে তাদের

একটি পশম পর্যন্ত মাটি খায় না। আল্লাহওয়ালাদের লাশ আল্লাহ রক্ষা করতে পারেন। এরকম প্রমা’ণ আমরা আগে অনেক দেখেছি।দশমিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার

মো: আল-আমিন জানান, লাশ উদ্ধারের খবর শুনেছি। ই’সলামের দৃষ্টিতে বললে এমন হতে পারে। আবার বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে দেখলে মাটির কারণেও হতে পারে।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »