1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD Atikurrahaman : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
ওসি প্রদীপ কুমারের সকল হ’ত্যাকাণ্ডের বিচার চান সাবেক সেনা কর্মকর্তারা মেজর সিনহা হত্যার চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসল জেনে নিন কারা কারা জরিত এবার আরও ৪০০ জন তালেবান বন্দিকে মুক্তি দিল আফগান সরকার মেজর সিনহা হত্যা: পলাতক দুই আসামি পুলিশ নয়, তাহলে তারা কারা? ভারতের বিরুদ্ধে সোচ্চার না হলে বাংলাদেশের মুক্তি নাই: ডা. জাফরুল্লাহ রক্তের সম্পর্ক থাকলে কি স্বামী-স্ত্রী হওয়া যায়? বাংলাদেশের ৮ রুট দিয়ে যে ভাবে পণ্য পরিবহন করতে চায় ভারত ! আল্লামা মনিরুজ্জামান সিরাজীর জানাজায় লাখো মানুষের ঢল রামের জন্ম বা’বরী মসজিদের স্থানে নয়, নেপালের অযোধ্যাপুরীতে : নেপালের প্রধানমন্ত্রী ভারতে ‘জয় শ্রী রাম’ এবং ‘মোদি জিন্দাবাদ না বলায় মুসলিম অটোচালককে বেধড়ক মারধর

জেনে নিন মূল্যে পাওয়া যাবে করোনার ভ্যাকসিন

  • প্রকাশিত: ০৫:০২ pm | শনিবার ১১ জুলাই, ২০২০
  • ১৫০ বার পঠিত
মূল্যে

বিজয়ের বাংলাঃজেনে নিন মূল্যে পাওয়া যাবে করোনার ভ্যাকসিন

করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ মহামারি নিয়ে গোটা বিশ্ব এখনো হিমশিম খাচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এই ভাইরাস রুখতে নানা দেশের গবেষকরা ভ্যাকসিন বা টিকা তৈরির কাজ করছে।

বিশ্বে এ পর্যন্ত অন্তত ১২০টি ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা চলছে। এ তালিকায় বাংলাদেশও রয়েছে। বাংলাদেশের গ্লোব ফার্মার ভ্যাকসিন দ্বিতীয় ধাপে এনিম্যাল ট্রায়ালে রয়েছে। তবে সবচেয়ে এগিয়ে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাকসিন। আগামী অক্টোবর থেকে ভ্যাকসিনটি উন্মুক্ত করা হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার শীর্ষ বিজ্ঞানীও অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটিকেই প্রাধান্য দিচ্ছে। তাদের তৈরি ভ্যাকসিনটি চূড়ান্ত পর্যায়ে বাজারে আসলে দামও কম থাকবে বলে মত সংশ্লিষ্টদের।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইকোনমিস্ট’ তাদের এক বিশেষ প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটির তৃতীয় ধাপের ফলাফল আগস্ট মাসের মধ্যে জানা যাবে। এই ফলাফলে সফল হলেই ভ্যাকসিনটি জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পাওয়া যাবে।

এদিকে, ভ্যাকসিনটি তৈরি হলে সেটি বাজারজাতের জন্য ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা ইতোমধ্যে সাপ্লাই চেইন তৈরি করছে বলে খবর প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়ার নিউজ ডটকম ডটএইউ।

খবরে বলা হয়েছে, ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে সম্ভাব্য এই ভ্যাকসিনের ২০০ কোটি ডোজ প্রাথমিক অর্ডার পেয়েছে। কোম্পানির তথ্য অনুযায়ী, ভ্যাকসিনটির দাম থাকবে খুবই কম। তাদের মতে, এটি এক কাপ কফির দামের সমান বা তার চেয়ে কম হতে পারে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রধান নির্বাহী প্যাসকল সারিওট বলেন, তাঁদের ভ্যাকসিন এক বছর পর্যন্ত কোভিড-১৯–এর বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে সক্ষম হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগস্ট বা সেপ্টেম্বরে এর ফল জানা যাবে। ভ্যাকসিনের ফলের জন্য অপেক্ষার পাশাপাশি ভ্যাকসিন উৎপাদন চলছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে অক্টোবরেই ভ্যাকসিন সরবরাহ শুরু করা যাবে।

করোনাভাইরাসে বিশ্বে এ পর্যন্ত এক কোটি ২৬ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫ লাখ ৬২ হাজার। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৩ লাখ মানুষ।

এদিকে, বাংলাদেশে শুক্রবার (১০ জুলাই) পর্যন্ত সবশেষ ২৪ ঘণ্টার তথ্যে দেখা যায়, দেশে শনাক্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে।

সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২ হাজার ৯৪৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে বাংলাদেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৭৮ হাজার ৪৪৩ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২ হাজার ৭৫ জন।

শুক্রবার (১০ জুলাই) দুপুরে করোনা ভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৫ হাজার ৮৬২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৩ হাজার ৪৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ৯ লাখ ১৮ হাজার ২৭২টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে আরও ২ হাজার ৯৪৯ জনের দেহে। ফলে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৭৮ হাজার ৪৪৩ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ৩৭ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৭৫ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ১ হাজার ৮৬২ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৮৬ হাজার ৪০৬ জনে।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। কয়েক দফা বাড়িয়ে এ ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত করা হয়।