1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  3. rabbimollik2002@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. msthoney406@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. abur9060@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
শেষমেশ পরিচয় মিললো সেই বৃদ্ধার! - ২৪ ঘন্টাই নিউজ
শিরোনাম:
১৪ বছরের আইপিএল ইতিহাসে এই রেকর্ডটি শুধুই বাংলার বাঘ মুস্তাফিজের, নেই আর কারও রাজধানীতে আবারও স্বস্তির পরশ বুলিয়ে এক পশলা বৃষ্টি এবার টেস্টের ও ওয়ানডে খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসছে ভারত! দেখেনিন খেলার সময় সূচি জেনে নিন তালের শাঁসের উপকারিতা দারুন সুখবরঃ অনশেষে বাবর-কোহলিকে টপকে বিশ্বের ১ নাম্বার ব্যাটসম্যান হলেন বাংলাদেশের এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান মাত্র পাওয়াঃ ফর্মে থাকতেই সে বিদায় নেবেন : মুশফিকুর রহিমের বাবা হৃদয়বিদারকঃ যমুনার ভাঙনে পানির সাথে বিলীন কয়েকশ ঘরবাড়ি এলিমিনেটর ম্যাচে লড়বে লখনউ বনাম ব্যাঙ্গালোর, জেনে নিন দুই দলের মহাশক্তিশালী একাদশ! ব্রেকিং নিউজঃ আরো যে ৩ দেশে মাঙ্কিপক্স শনাক্ত গত ২ বছরের এমন টানা সাফল্যের রহস্য খোলাসার ইস্যুতে লিটনের উত্তরে অবাক হয়ে গেলেন সবাই

শেষমেশ পরিচয় মিললো সেই বৃদ্ধার!

  • আপডেট করা হয়েছে: শুক্রবার, ১৩ মে, ২০২২
  • ৪৫৬ বার পঠিত

গা’ইবান্ধা শ’হরের ডে’ভিড কো’ম্পানি পাড়ার আনিসুর রহমানের স্ত্রী বাছিরন বেওয়া (৯২) প্রায় নয় মাস আগে মা’রা যান। এরপর সবকিছু স্বাভাবিক চলছিল। সম্প্রতি মারা যাওয়া বাছিরন বেওয়ার সাদৃশ্যে এক নারীকে গাইবান্ধা রেল ষ্টেশন চত্বরে ঘোরাফেরা করতে

দেখা যায়। তিনিও নিজকে বাছিরন বেওয়া দাবি করেন। এ নিয়ে ওই এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। পরে ওই নারীকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। ঘটনার দুই দিন পর ওই বৃদ্ধার পরিচয় মিলেছে। তার প্রকৃত নাম শেফালী সরদার। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন। খুলনার দৌলতপুর থেকে পথ হারিয়ে গাইবান্ধা চলে আসেন।আজ

শুক্রবার (১৩ মে) সকালে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ তাকে আশ্রয় দেয়া সুফিয়া বেগমের কাছে হস্তান্তর করেছে। তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা আব্দুর রহমান বলেন, ‘বৃদ্ধার খবর পেয়ে খুলনার দৌলতপুরের বাসিন্দা সুফিয়া বেগম আজ সকালে গাইবান্ধা আসেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘সুফিয়া বেগম জানান, ওই বৃদ্ধার নাম বাছিরন বেওয়া নয়। তার প্রকৃত নাম শেফালী সরদার। তিনি

প্রতিবন্ধী বলে তার নামে একটি প্রতিবন্ধী কার্ডও প্রদর্শন করেন।’ বৃদ্ধাকে নিতে আসা সুফিয়া বেগম বলেন, ‘শেফালী সরদারের আত্মীয়স্বজন কেউ নেই। তার কোন ঘর-বাড়িও নেই। তিনি আমার বাড়িতে দীর্ঘদিন যাবত আশ্রিতা হিসাবে থাকতেন। প্রতিবন্ধী বলে তার নামে প্রতিবন্ধী কার্ডও করা হয়েছে।’ গাইবান্ধা সদর

থানার ওসি (তদন্ত) ওয়াহেদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘টেলিফোনে খুলনার দৌলতপুরে বৃদ্ধার আশ্রিতার গ্রামের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের কাছে সত্যতা যাচাই করেছি। পরিচয়ের সত্যতা মেলায় বৃদ্ধা শেফালী সরদারকে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com