1. skarman0199094@gmail.com : Sk Arman : Sk Arman
  2. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  3. alamran777777@gmail.com : Md. Imran : Md. Imran
  4. Mijankhan298@gmail.com : Md Mijankhan : Md Mijankhan
  5. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  6. rujina666666@gmail.com : Rujina Akter : Rujina Akter
  7. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  8. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
দেশে ফেরার সময় বাংলাদেশি এক নারীকে ক্যাম্পে নিয়ে ধর্ষণ বিএসএফ সদস্য গ্রেফতার নয়া জল্পনা উসকে পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনায় মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টা, উদ্বি’গ্ন ভারত টোকিও অলিম্পিকের‘পদক জিতলেই ভারতীয়, নইলে চাইনিজ করোনা’ টিকাদানের কর্মসূচি জোরদার করতে যে পরামর্শ দিলেন জো বাইডেন এনজিওর মা’মলা’র ফাঁদে আটকে গেছেন মা শাহনাজ, বাইরে কাঁদছে ৬ মাসের শি’শু! সমালোচিত রাজনীতিবিদ কে এই হেলেনা জাহা,ঙ্গী,র? করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট জলবসন্তের মতো সহজে ছড়ায়, কঠিন অসুস্থতার সৃষ্টি করছে: সিডিসি স’র্বনা’শা পদ্মায় চোখের সামনে বি’লী’ন হচ্ছে হাজারও মানুষের স্বপ্নের ভিটেবাড়ি আমেরিক সারাবিশ্বে সাইবার সিকিউরিটির জন্য সবচেয়ে বড় হু’মকি ; চীন ইসলাম-বি’দ্বে’ষী শক্তির কাছে কেন আ’তঙ্ক আল্লামা শাইখ ইব্রাহিম জাকজাকি?

ম্যানেজার একে একে সব বোনের স্বামী হলেন!

  • প্রকাশিত: ০৭:৩০ pm | বৃহস্পতিবার ২৪ জুন, ২০২১
  • ২৪০ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা: একে একে তিন বোনকে বিয়ে করেছেন। তবে এর পেছনে রয়েছে নানা কষ্টের কাহিনি। এক ধরনের নিরুপায় হয়েই এসব বিয়ে করেন তিনি।

আবদুল হক চৌধুরীর বাড়ি ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের গুনক গ্রামে। তার বাবার নাম আবদুল কাদের।

তিনি চাটার্ড লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানির ফেনীর সাউথ অফিসের ইউনিট ম্যানেজার। জানা গেছে, ১৯৯৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর একই ইউনিয়নের বাদুরিয়া গ্রামের সেকান্তর বাদশার বড় মেয়ে সবুরা খাতুনকে বিয়ে করেন আবদুল হক। বিয়ের পর তাদের সংসারে দুটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়।

প্রায় ১৯ বছর সংসার শেষে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে সবুরা মারা যান। এর কয়েক মাস পর দুই পরিবারের সম্মতিতে সবুরার ছোট বোন রাশেদাকে বিয়ে করেন তিনি।

এ সংসারেও একটি কন্যা সন্তান হয়। কিন্তু বিধিবাম, ছয় বছর সংসার করার পর রাশেদাও অসুস্থ হয়ে মারা যান। পরপর দুই স্ত্রীর মৃত্যুতে হতাশ হয়ে পড়েন আবদুল হক চৌধুরী। শোকের ছায়া নেমে আসে দুই পরিবারে। দুই স্ত্রী হারিয়ে তিন এতিম মেয়ে নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় দিন কাটছিল আবদুল হক চৌধুরীর।

মা-খালার মৃত্যুতে মেয়েরা থাকতে শুরু করে নানার বাড়িতে। এদিকে স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় আবদুল হক চৌধুরীর স্ত্রীর মেজো বোন খাদিজার সংসার ভেঙে যায়।

একপর্যায়ে এতিম মেয়েদের কথা চিন্তা করে দুই পরিবারের সম্মতিতে আবদুল হক চৌধুরীর কাছে খাদিজাকে বিয়ে দেন। সেই অনুযায়ী চলতি বছরের মে মাসে তাদের বিয়ে হয়।

এ ব্যাপারে আবদুল হক চৌধুরী বলেন, আল্লাহ আমাকে কঠিন থেকে কঠিনতম পরীক্ষা করছে। পরপর দুই স্ত্রীকে হারিয়ে এতিম মেয়েদের নিয়ে কঠিন সময় পার করছি।

আল্লাহর রহমত, মা-বাবা ও এলাকাবাসীর দোয়া এবং দুর্দিনে শ্বশুরের পরিবারের লোকজন পাশে থাকায় এখনো টিকে আছি।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »