1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
এবার নারীদের হিজাব এবং পুরুষের টাকনুর ওপর পোশাক পরে অফিসে আসার নির্দেশ বাবা-মা আমাকে জ’ন্ম দিতে চায়নি,তবুও আমি হয়েচ ! এলোভেরা যেভাবে রাতে মাত্র ৫ মিনিট ব্যবহার করলেই পাবেন ফর্সা, উজ্জল ও দাগমুক্ত ত্বক শ্যাম্পুর সঙ্গে চিনি মেশালে মু’হূর্তেই মিলবে যে আ’শ্চর্য উপকার! ৩৫ হাজার ফুট উঁচুতে মধ্য আকাশে জন্ম নিলো শিশু, আজীবন আকাশ ভ্রমণ ফ্রি ! দাওয়াত ছাড়া বিয়ে খেয়ে আবার উপহার নিয়ে পলায়ন! ভুল করেও এই সব খাবার দ্বিতীয় বার গরম করে খাবেন না হতে পারে বিপদ ! মোরগের হা’তে পুলিশ কর্মকর্তার মৃ’ত্যু! মহানবী (সাঃ) যেভাবে চুল কাটতে নিষেধ করেছেন ! স্বা’মী’কে মা’টি’তে পুঁ’তে রেখে উপ’রে খা’ট বিছি’য়ে ঘুম স্ত্রী’র

ভাত না খেয়ে বিশ বছর পার কাওসারের

  • প্রকাশিত: ০৩:২৪ am | শনিবার ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৯৯ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা:
ভাত না খেয়ে বিশ বছর পার কাওসারের।
ভাত বাঙালির প্রধান খাদ্য। আর বাঙালি হয়ে জন্মের পর থেকে বিশ বছর পার হলেও এ পর্যন্ত ভাত না খেয়েই দিব্যি জীবনযাপন ক’রছেন কাওছার আহম্মেদ

নামে এক তরুণ। কাওছার আহম্মেদের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুরী ইউনিয়নের দণি পূর্বচর পাড়াতলা গ্রামে। বাবা মো.আফাজ উ’দ্দিন এবং মা

মোমেনা খাতুন। চার ভাই ও ৩ বোনের মাঝে কাওছার সবার ছোট। কাওছার বর্তমানে নরসিংদী সরকারি কলেজে

ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অনার্স প্রথম বর্ষে অধ্যয়ন করছেন। আর সবার মতো সুস্থ এবং স্বাভাবিকভাবেই তার জন্ম। কিন্তু ০৬ মাস বয়সে ‘মুখে ভাত’ দে’ওয়ার সময় শিশু

কাওছারের মুখে প্রথমবার ভাত দিতেই সে কান্নাকাটি শুরু করে দেয় এবং বমি করে ফেলে। পরিবারের লোকজন ভাবে আরেকটু

বড় হোক তখন ভাত খাওয়ানো যাবে। দুই বছর পর্যন্ত শুধু মায়ের বুকের দুধ খেয়েই বড় হয় সে। এরপর তাকে আবার ভাত খাওয়ানোর চেষ্টা শুরু করে প’রিবারের

লোকজন। কিন্’ তখনো সে ভাত খেতে চায় না। জোর করে ভাত খাওয়াতে গেলেই বমি করে দেয়। এরপর থেকে পরিবারের কেউ আর তাকে জোর করে ভাত

খাওয়ানোর তেমন একটা চেষ্টা করেনি। ভাতের বিকল্পে তাকে সুজি খাওয়ানো শুরু করা হয়। ৫-৬ বছর পর্যন্ত শুধু সুজি খেয়েই পার করে সে। এদিকে বয়সের সঙ্গে

খাবারের চাহিদা বাড়লে সুজির বদলে সে রুটি, দুধ, কলা, চিড়া, সেমাই খেতে থাকে। কাওছার আহম্মেদের মা মোমেনা খাতুন জানান, তার জন্মের ৬ মাস পর

চাল দিয়ে রান্না করে নরম খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা করে আমরা ব্যর্থ হয়েছি। তাকে মারধর করেও কোনো লাভ হয়নি। অবশেষে তাকে তার মতো করেই খেতে

দেওয়া হয়। তার যা ভালো লাগে, তা সে খায়। দেখতে দেখতে সেই ছোট্ট ছেলেটি এখন ২০ বছরের যুবক। এত বছর বয়সে সে একবারও ভাত খায়নি। রুটি, বিস্কুট,

ফলসহ অন্যান্য খাবার খেয়ে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। কাওছার আহম্মেদ জানান, ভাত দেখলেই আমার খারাপ লাগে। রুটি আমার প্রধান খাবার। এতেই আমি

স্বা”ছন্দ্যবোধ করি। আমি নিয়মিত ব্যায়াম করি। আমার স্বাস্’্য ভালো, শরীরে কোনো সমস্যা নেই। নারায়ণগঞ্জের সাবেক সিভিল সার্জন ও মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মো.