1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. rabbimollik2002@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. msthoney406@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. abur9060@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
বিনা ভাড়ায় বিএনপির সমাবেশে লোক পৌঁছে দেওয়ায় পেলেন অটোরিকশা উপহার - ২৪ ঘন্টাই খবর

বিনা ভাড়ায় বিএনপির সমাবেশে লোক পৌঁছে দেওয়ায় পেলেন অটোরিকশা উপহার

  • আপডেট করা হয়েছে: শনিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৩২ বার পঠিত

ময়মনসিংহে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে পরিবহন বন্ধ থাকায় রিকশা চালিয়ে বিনা ভাড়ায় কর্মীদের পৌঁছে দেওয়া আমিনুল ইসলামকে নতুন ব্যাটারিচালিত রিকশা উপহার দিয়েছে বিএনপি।

রিকশা-চালক আমিনুল ইসলাম জেলার তারাকান্দা উপজেলার গালাগাঁও গ্রামে নাজিম উদ্দিনের ছেলে। এলাকায় কৃষিকাজ করে সংসার চালাতেন তিনি। এক বছর আগে ছেল মেয়েদের পড়াশোনা

করানোর জন্য স্ব-পরিবারে নগরীর ব্রাহ্মপল্লী এলাকায় চলে আসেন। তার বড় মেয়ে মাস্টার্সে পড়াশোনা করছেন আনন্দমোহন কলেজে ও ছোট ছেলে স্থানীয় নটরডেম কলেজে এইচএসসিতে পড়াশোনা করছেন।

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় নগরীর ব্রহ্মপল্লী এলাকায় আমিনুল ইসলামের বাসায় গিয়ে এই উপহার পৌঁছে দেয় বিএনপি নেতারা। এসময় তারেক রহমানের পক্ষ থেকে আমিনুল ইসলামকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে নতুন অটো-রিকশাটি

হস্তান্তর করে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। এ বিষয়ে আমিনুল ইসলাম বলেন, আমি বিএনপির একজন কর্মী। কর্মী হিসাবে গত ১৫ আগস্ট গন-পরিবহন বন্ধ থাকায় নগরীর ব্রীজ মোড়, চরপাড়া, টাউন হল, কার্চারীঘাট, ইউনিভারসিটি

শেষ মোড়সহ অনেক জায়গা থেকে বিনা ভাড়ায় বিএনপির কর্মীদের পলিটেকনিক সমাবেশ স্থলে আমি পৌছে দেই। এটা শুধু আমার দলের প্রতি ভালবাসা থেকেই করেছি, কোন কিছু পাওয়ার জন্য না।

তিনি আরও বলেন, বিনা-ভাড়ায় বিএনপির কর্মী বহন করার বিষয়টি আমার নেতা তারেক রহমানের কাছে পৌছে যাবে। আমি তা বুজতে পারিনি। তবে, এজন্য আমার নেতারা একটি ব্যাটারী চালিত অটো রিকশা কিনে দিছে। এতে আমি অনেক খুশি। এখন আমি ছেলেমেয়ের আরও ভাল করে লেখাপড়া করাতে পারব।

এসময় সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, মানব দরদী দিন-মজুর আমিনুল ইসলামকে অটোরিকশা উপহার দিয়ে গণসমাবেশে তাঁর পরিশ্রম, অবদানকে সম্মান জানিয়ে হাজার নেতাকর্মীকেও সম্মানিত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ময়মনসিংহের গণসমাবেশে বাঁধা বিঘ্ন সন্ত্রাস, নৈরাজ্য উপেক্ষা করে লাখ লাখ মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিত হয়ে সরকারের সকল অপকৌশল ও চক্রান্ত ব্যর্থ করে দিয়েছে। এতে সরকারের দেউলিয়াত্ব এবং চলমান আন্দোলনে তারা যে আতঙ্কিত ও বিচলিত তা প্রমাণ হয়েছে। কিন্তু এসব করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবে না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটি সদস্য ব্যারিস্টার মীর মোঃ হেলাল উদ্দিন, বিএনপি মিডিয়া সেলের সদস্য আতিকুর রহমান রুমন, ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা.মাহবুবুর রহমান লিটন, মহানগর বিএনপির

আহ্বায়ক অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম, উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ কালাম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন বাবলু, মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ, উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার প্রমূখ।

গত ১৫ অক্টোবর বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ-কে কেন্দ্র করে আগের রাত থেকেই গনপরিবহন বন্ধ হয়ে যায়। এতে করে বিএনপির নেতাকর্মীদের রিকশা দিয়ে আমিনুল ইসলাম সকাল থেকে দুপুর দুই টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে নগরীর বিভিন্ন স্থান

থেকে সমাবেশস্থল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে নেতা-কর্মীদের নিয়ে যায় সে। ওই দিন বিনা ভাড়ায় বিএনপির কয়েকশ নেতাকর্মীকে সমাবেশ-স্থলে পৌঁছে দেন। বিষয়টি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে নজরে আসে বিএনপি নেতাদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com