1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. rabbimollik2002@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. msthoney406@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. abur9060@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীদের আচরণ খুব খারাপ ছিল : আইনমন্ত্রী - ২৪ ঘন্টাই খবর

বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীদের আচরণ খুব খারাপ ছিল : আইনমন্ত্রী

  • আপডেট করা হয়েছে: শুক্রবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৯১ বার পঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীদের অশোভন আচরণ ও গালাগালের জেরে আইনজীবী ও বিচার বিভাগীয় কর্মচারীদের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে অস্থিরতা বিরাজ করছে বিচারাঙ্গনে। এ বিষয়ে আজ শুক্রবার সকালে আখাউড়া রেলস্টেশনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্তব্য করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালতে বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীদের খারাপ আচরণের কথা শুনেছি। এখন কথা হচ্ছে যে বিচার বিভাগ স্বাধীন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারকসহ অন্য বিচারকরা প্রধান বিচারপতির কাছে অভিযোগ করেছেন, ভিডিও পাঠিয়েছেন। সেখানে দেখা গেছে একজন বিচারকের প্রতি তাদের আচরণ খুব খারাপ ছিল, সেটা আমি শুনেছি। সেই প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট কনডেমট রুল জারি করেছেন। এটা এখন বিচারাধীন ব্যাপার। আদালত বিচার করবেন।’

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বিচারক হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক (জেলা জজ) মোহাম্মদ ফারুক। তার সঙ্গে আইনজীবীদের অশোভন আচরণের একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

৩ মিনিট ১৩ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, বিচারক মোহাম্মদ ফারুকের এজলাস চলাকালে অ্যাডভোকেট আক্কাস আলী নামের একজন আইনজীবী তাকে আদালত বর্জন করতে বলেন। এ নিয়ে যখন বিচারকের সঙ্গে আক্কাস আলীর বাদানুবাদ চলছিল তখন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতিসহ কয়েকজন আইনজীবী গিয়ে বিচারক মোহাম্মদ ফারুককে অশোভন আচরণ ও অঙ্গুলি প্রদর্শন করে এজলাস থেকে নেমে যেতে বলেন।

শুক্রবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট তানভীর আহমেদ ভূঞা, সম্পাদক (প্রশাসন) অ্যাডভোকেট মো. আক্কাস আলী ও অ্যাডভোকেট জুবায়ের ইসলামকে তলব করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী ১৭ জানুয়ারি আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে তাদের ওই ঘটনার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

এ ছাড়া বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলসহ দলটির গ্রেপ্তার নেতাদের জামিনের বিষয়ে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করেনি বলেও জানান আইনমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আদালত স্বাধীনভাবে তাদের সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। এতে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। সরকার বা সরকারের কোনো মন্ত্রণালয় আদলতের মামলা হওয়া বা চলাকালীন কোনো বিষয়েই হস্তক্ষেপ করেন না।’

আনিসুল হক বলেন, ‘অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে শুনেছি হাইকোর্টে যে জামিন দেওয়া হয়েছিল, সেখানে কিছু আইনের ব্যত্যয় ঘটেছে। সে জন্য তিনি আপিল বিভাগে গেছেন।’

এ সময় আইনমন্ত্রীর সঙ্গে আখাউড়া পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজলসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com