1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. rujina666666@gmail.com : Rujina Akter : Rujina Akter
  5. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  6. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
ভুল করে’ আ’লীগ নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করলো পুলিশ, ২ এসআই প্রত্যাহার যেই দেশে স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয় প্রতি ৩ মিনিটে ১বার কুরআন খতমের মাধ্যমে বিশ বছরে হাজারবার কোরআন খতমকারী সেই বৃদ্ধ আর নেই এবার ঠাকুরগাঁওয়ে কিল এবং ঘুষি দিয়ে বৃদ্ধা ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই ছাত্রদল যেভাবে ইটপাটকেল মারছিল পুলিশ চরম ধৈর্য্যের পরিচয় দিয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবার পবিত্র কুরআনের সর্বকনিষ্ঠ ক্যালিগ্রাফার মারজান এবার মসজিদ ভেঙে পার্ক নির্মাণ, যা বলছে কমিটি যে সূরা কেয়ামতের দিন আল্লাহর সঙ্গে ঝগড়া করবে এবার টানা তিনবার ‘বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন এরদোগান ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ :খুলেছে সিনেমা হল বন্ধ কেন পরীক্ষার হল?

প্রিয় নবীজী (সা:) এর শেষ বিদায়ের মুহুর্ত গুলি

  • প্রকাশিত: ০৫:৪০ pm | বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৫০ বার পঠিত

আকরাম ফারুক বিজয়ের বাংলা :প্রিয় নবীজী (সা:) এর শেষ বিদায়ের মুহুর্ত গুলি। সেদিন সোমবার। চরম বেদনা-বিধুর এক সোমবার।চির বিদায়ের দিন মহানবীর। তখন ছিল সুবহে সাদিক।মসজিদে নববীতে ফজরের জামায়াতে সমবেত হয়েছেন সাহাবীরা। নবিজির

অপেক্ষা করতে করতে আবু বকরের ইমামতিতে নামায তখন আরম্ভ হয়েছে।এই সময় মহানবীর হৃদয় ব্যাকুল হয়ে উঠল এটা দেখার জন্য যে, তার পরে আল্লাহর বান্দারা কিভাবে মহাপ্রভুর উপাসনায় লিপ্ত থাকে। তিনি তাঁ’র কামরার পর্দা তুলে দিতে বললেন। পর্দা উঠে যেতেই মসজিদে

নববীতে সাহাবীদের নামাযের জামায়াত দৃশ্যমান হয়ে উঠল। এই নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখে সেই অন্তিম সময়েও মহানবীর মুখ-মণ্ডলের রোগ-ক্লিষ্টতা যেন দূর হয়ে গেল। আনন্দ-উৎসাহে দীপ্ত হয়ে উঠল তাঁর বদনমণ্ডল। ঠোঁটে দেখা দিল তাঁর হাসির

রেখা।সাহাবীদের দিকে চেয়ে শেষবার যেন হাসলেন মহানবী (সা)। সেই শেষ দিনের স্নেহের দুলালী ফাতিমা (রা)। যন্ত্রণাকাতর পিতার দিকে চেয়ে চিৎকার করে বলে উঠলেন, ‘হায়, আমার পিতা না জানি কত কষ্ট পাচ্ছেন।’ স্নেহের দুলালী কন্যা

ফাতিমার এই বিলাপ শুনে মহানবী বললেন, ‘ফাতিমা, আর অল্প সময় তোমার পিতার কষ্ট, আজকের পর আর কষ্ট নেই।’ মহানবীর পাশে উম্মুল মুমিনীন আয়েশা(রা)। যন্ত্রণা-পীড়িত মহানবীর একটা অভিপ্রায় তিনি বুঝলেন। উম্মুল মুমিনীন একটা

মেছওয়াক চিবিয়ে মহানবীর হাতে দিলেন। তা নিয়ে মহানবী (সা)ধীরে দাঁতে বুলালেন। নিকটে পানির একটা পাত্র ছিল। পাত্র থেকে হাতে করে পানি নিয়ে মুখে দিতে দিতে তিনি বললেন, “মৃ’ত্যুর অনেক কষ্ট। লা’ ইলাহা ইল্লাল্লাহ। হে আল্লাহ আমাকে মৃত্যু

যন্ত্রণা সহ্য করার শক্তি দান কর।”
দিনের তখন তৃতীয় প্রহর শেষ হতে যাচ্ছে।
মহানবী (সা) বার বার অচেতন হয়ে পড়ছেন। প্রতিবার চেতনা ফিরে আসার পরই তিনি বলছেন, “হে আল্লাহ,হে আমার পরম বন্ধু, হে আমার পরম সুহৃদ তোমার
সঙ্গে তোমার সন্নিধানে আমি প্রস্তুত ।”

মহানবীর পরম স্নেহভাজন হযরত আলী (রা)-এর কোলে তখন মহানবীর মাথা। চোখ মে’ললেন মহানবী (সা)এবং আলীর দিকে তাকালেন। বললেন, “সাবধান, দাস-দাসীদের প্রতি নির্মম হয়ো না।’ এরপর মহানবীর চির বিদায়ের অন্তিম মুহূর্ত। উম্মুল মুমিনীন আয়েশা (রা) মহানবীর মাথা

কোলে নিয়ে বসে আছেন।তখন শেষবারের মত মহানবী (সা) চোখ খুললেন।উচ্চকণ্ঠে বলে উঠলেন, ‘না’মাজ, নামাজ সাবধান! দাস-দাসীদের প্রতি সাবধান!’ এবং মহানবীর কণ্ঠে উচ্চারিত হলো, ‘হে আল্লাহ, হে আমার পরম সুহৃদ!’

এটাই ছিল রাহমাতুললিল আলামিনের শেষ নিঃশ্বাসের শেষ কথা। মহাপ্রভুর উদ্দেশ্যে চির বিদায় ঘটল জগতের শেষ নবী, আশরাফুল আম্বিয়া, রাহ’মাতুললিল
আলামিন মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের। ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২১ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »