1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 
সর্বশেষঃ
কাশ্মীরে পাকিস্তানি সেনাদের গু’লিতে ভারতীয় বিএসএফ কর্মকর্তা নি’হত পবিত্র আজান হলো শান্তি আর প্রেমের প্রতীক: শিবসেনা নেতার মন্তব্য এবার মধুপুরে গোবরের মধ্যে পবিত্র কুরআন শরীফ ফেলে ইসলাম ধর্মকে অবমাননা বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে মামুনুল হকের পরিণতি খুব খারাপ হবে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী এবার সংবিধান থেকে ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম’ বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন অকারণে আলেমদের নিয়ে কটূকথা বলবেন না: ডা. জাফরুল্লাহ অনলাইনেও নিরাপদ নয় শিক্ষার্থীরা বাল্যবিয়ের অভিশাপে বৃষ্টির দুঃসহ জীবন শুধু ধ’র্ষণ নয়, কা’টাছেঁ’ড়া মৃ’তদে’হের সঙ্গে সেলফি তুলতো মুন্না বাড়ি তো নয় যেন মাটির প্রাসাদ

দাড়ি রাখার জন্য চাকরি থেকে বরখাস্ত হলেন এক মুসলিম পুলিশকর্মী

  • প্রকাশিত: ১২:০৪ pm | শুক্রবার ১৩ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৫৭ বার পঠিত

দাড়ি রাখার জন্য চাকরি থেকে বরখাস্ত হলেন এক মুসলিম পুলিশকর্মী

দাড়ি রাখার জন্য চাকরি থেকে বরখাস্ত হলেন উত্তরপ্রদেশের এক মুসলিম পুলিশকর্মী

দাড়ি রাখার জন্য এবার চাকরি খোয়াতে হল এক ব্যক্তির। এমনি কোনো চাকরি নয়, পুলিশের চাকরি। হ্যাঁ, শুনতে

অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশ-এর বাগপত জেলায়। আর ওই বরখাস্ত হওয়া

পুলিশকর্মীর নাম ইন্তেসার আলি। ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই দাড়ি রাখার জন্য বরখাস্ত হয়েছেন তিনি।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের বাগপত জেলার ওই পুলিশ স্টেশনের পুলিশ ড্রেস কোডের নিয়ম ভাঙায়

স্টেশনের সাব ইনস্পেক্টর ইন্তেসার আলিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। পুলিশ ড্রেস কোড অনুযায়ী নিয়ম রয়েছে যেশিখ

সম্প্রদায় ছাড়া অন্য কোনও সম্প্রদায়ের মানুষরা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখতে পারবেন না। আর এই

ব্যক্তি ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই দাড়ি রেখেছেন বলে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে।ওই পুলিশকর্মী

ইন্তেসার আলি বলেন যে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে দাড়ি রাখার জন্য আবেদন জানিয়ে চিঠি দিয়েছিলাম। কিন্তু,

এতদিন হয়ে যাবার পরেও তার জবাব পায়নি। গত ২৫ বছর ধরে উত্তরপ্রদেশ পুলিশে কাজ করেছি। কিন্তু, এতদিন

পর্যন্ত কেউ তাঁকে দাড়ি রাখার জন্য বাধা দেয়নি। বাগপতের পুলিশ সুপার অভিষেক সিং বলেন যে আলীকে এই

বিষয়ে বারবার সতর্ক করার হলেও ড্রেস কোড সংক্রান্ত আইন মানেননি। তাঁকে আগেও শোকজও করার হয়েছিল। তবুও তিনি তা শোনেননি।

নিউজটি শেয়ারের অনুরোধ রইলো

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯-২০২০ 'বিজয়ের বাংলা'
Developed by  Bijoyerbangla .Com
Translate to English »