1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 

ঢাকাতে ইসলামী আন্দোলনের ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা

  • প্রকাশিত: ০২:০৩ am | বুধবার ২৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৬ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা:
ঢাকাতে ইসলামী আন্দোলনের ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা
বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর অবমাননার প্রতিবাদে বাং’লাদেশের রাজধানী ঢাকায় ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি পু’লিশের বাধার কারণে মাঝপথেই সমাপ্ত ঘোষণা করতে হয়েছে। ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়

পৃষ্ঠপোষকতায় রাসূল (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ সমাবেশ ও ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি দেয় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।কর্মসূচি অনুযায়ী আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১০টার দিকে বায়তুল

মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেটে এক সংক্ষিপ্ত প্রতিবাদ সমাবেশে আশ নেন কয়েকশ’ নেতা-কর্মী। এরপর একটি বি’ক্ষোভ মিছিল নিয়ে ফ্রান্স দূতাবাস

ঘেরাওয়ের উদ্দেশে গুলশানের দিকে রওনা হন নবীপ্রেমী জনতা। বিক্ষোভ মিছিলটি শান্তিনগর মোড়ে পৌঁছালে পুলিশ তারকাটার ব্যারিকেড দিয়ে তাদের আটকে দেয় এবং সেখানে তাদের কর্মসূচির সমাপ্তি ঘটে।
এ সময় সংক্ষিপ্ত স’মাবেশে বক্তারা ফ্রান্সের

সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করা, জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব জ্ঞাপন করা, বাং’লাদেশ থেকে ফ্রান্সের দূতাবাস সরিয়ে দেওয়াসহ কয়েক দফা দাবি

উপস্থাপন করেন। এসব দাবি না মানলে কঠোর কর্মসূচির হু’মকি দেন তারা।ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মিছিলটি পল্টন মোড়, বিজয়নগর হয়ে শান্তিনগর মোড়ে

পৌঁছালে পুলিশ কাঁটাতারের ব্যারিকেড দিয়ে তাদের আটকে দেয়।কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ

রেজাউল করিম সমাবেশে বলেন, ‘ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় মদদে মুহাম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শিত হচ্ছে। মুহাম্মদ (সা.)-কে অপমান করা হচ্ছে। যা ইসলাম ধর্মের প্রতি অবমাননা।’তিনি আরও বলেন, ‘ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুল ম্যাক্রোকে নিঃশর্ত ক্ষমা

চাইতে হবে।’ পাশাশাশি জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব আনারও দাবি জানান সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।এসময় তিনি ঘোষণা দেন, আগামী বৃহস্পতিবার (২৯

অক্টোবর) সারা দেশে জেলা ও মহানগরে এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে।মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম প্রশ্ন তুলেছেন, ‘বাংলাদেশ ৯২ ভাগ

মুসলমানের দেশ। ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি রাসুল (সা.)-কে নিয়ে ব্যঙ্গ উক্তি করার পর সারা বিশ্বের মুসলিম রাষ্ট্রপ্রধানরা বিভিন্ন ব্যবস্থা নিলেও আমাদের দেশের সরকার এখনও নিশ্চুপ কেন?সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ