1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  3. msthoney406@gmail.com : Md Rayhan : Md Rayhan
ডিজিটাল পোস্ট অফিসের একি হাল! - Online newspaper in Bangladesh
শিরোনাম:
ধর্ষকদের প্রকাশ্যে শাস্তির দাবি এসপি মাহিরার হৃদয়বিদারক দৃশ্যঃ সন্তানকে ডুবতে দেখে ঝাঁপ দিলেন মা, বাঁচল না কেউই কন্যাসন্তান বলে মুখে বালিশ চাপা দিয়ে মেরে ফেললো মা স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা নিয়ে সুখবর দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানো নিয়ে নতুন সির্ধান্ত জানালেন: শিক্ষামন্ত্রী তলিয়ে গেছে বহু আলু-বাদাম ক্ষেত, ডুবেছে পুকুর মাত্র পাওয়াঃ গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় নতুন নিয়ম প্রকাশ! আরিয়ানের খাবার পাঠানো নিয়ে জেল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ শাহরুখের কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম নিজের মেয়ের গলায় ব্লেড ধরে হিংস্র রূপ নেন বাবা,মা এসে দেখেন মেয়ে রক্তাক্ত!

ডিজিটাল পোস্ট অফিসের একি হাল!

  • আপডেট করা হয়েছে: শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১০৭ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা: জারাজীর্ণ ভবন, বৃষ্টির সময় টিনের ফুটো দিয়ে অঝোরে পড়ে পানি, বেশির ভাগ সময় থাকে ঘরটি তালাবদ্ধ। বাইরে ওয়ালের সঙ্গে ঝুলছে ডিজিটাল পোস্ট অফিসের ডিজিটাল ব্যানার। নাম তার পরানপুরহাট ডাকঘর। এমনিভাবে চলছে এর কার্যক্রম।

সরেজমিন জানা যায়, রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার পরানপুরহাট ডাকঘরের নিজস্ব কোনো ভবন নেই। টিনশেডের একটি ভাঙা ঘরে চলছে এর কার্যক্রম। ডাকঘরের বাইরে ‘ডিজিটাল পরানপুর অফিস’ লেখা থাকলেও বাস্তবে ডিজিটালের কোনো অস্তিত্ব নেই। সামান্য বৃষ্টিতেই টিনের ফুটো দিয়ে ঘরে প্রবেশ করে পানি। ডাকঘরে কোনো লকার, আসবাবপত্র ও ডিজিটাল স্কেল বা পাল্লা নেই। এলাকাবাসীর অভিযোগ, এই পোস্ট অফিসটি কাজে নয় শুধু নামেই ডিজিটাল পোস্ট অফিস।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, পোস্ট অফিসের নামে বরাদ্দকৃত কম্পিউটার ও প্রিন্টারসহ ডিজিটাল সামগ্রী পোস্ট অফিসে না রেখে সেগুলো রাখা হয়েছে পোস্ট মাস্টারের বাড়িতে। ডাকঘর কখন খোলা থাকে তা কেউ জানে না। এ অবস্থায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় সেবা গ্রহীতাদের।

স্থানীয় বাসিন্দা ভায়ালক্ষীপুর বুদিরহাট কলেজের প্রভাষক নূরে আলম বলেন, জন্মের পর থেকেই দেখছি ভাঙা ঘরে ডাকঘরের কার্যক্রম চলছে। সবকিছুর উন্নয়ন হলেও ডাকঘরের উন্নতি হয়নি। অনেকেই সেখানে সেবা নিতে গিয়ে অনীহা প্রকাশ করেন। এছাড়া ডাকঘরটি ভাঙা হওয়ায় আর্থিক লেনদেন করতে ভয় পান অনেকেই। এতে রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

চাকরিপ্রত্যাশী স্থানীয় যুবক রায়হানুল হক বলেন, আমি অনলাইনের মাধ্যমে চাকরির আবেদন করি। তাই ডাকঘরে তেমন যেতে হয় না। তবে কিছুদিন আগে একটি কাজে ডাকঘরে গিয়েছিলাম। অফিসের অবস্থা দেখে আমি অবাক হয়েছি। অবহেলিতভাবে চলছে সরকারি অফিসটি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বলেন, বর্তমানে ডাকঘরের সেবার আওতা বেড়েছে। দেশ-বিদেশে চিঠি, পার্সেল পাঠানো ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মানি ট্রান্সফার সেবাও দিচ্ছে। ডাকঘরে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ও কম্পিউটারসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি থাকে। ডাকঘরের নিজস্ব ভবন হলে এগুলোর নিরাপত্তাসহ গ্রাহকদের ভোগান্তি কমবে।

বিষয়টি সম্পর্কে চারঘাট উপজেলা ডাকঘরের পোস্ট মাস্টার জোসের রহমান বলেন, উপজেলার অধিকাংশ শাখা ডাকঘর সরকারি ভবন পেয়েছে। পরানপুরেও যদি কেউ জমি দান করেন তবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

পিএমজি উত্তরাঞ্চল রাজশাহীর সহকারী পোস্ট মাস্টার জেনারেল এনামুল হক বলেন, পর্যায়ক্রমে সব শাখা পোস্ট অফিসই সরকারি দালান ভবন পাচ্ছে। পরানপুরেও যদি কেউ ৫ শতাংশ জমি দান করেন তবে সরকারিভাবে সেখানে ভবন নির্মাণ করে দেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2021
Site Developed By Bijoyerbangla.com