1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. rabbimollik2002@gmail.com : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. msthoney406@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. abur9060@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
চাঞ্চল্যকরঃ স্বামীকে তালাক, ক্ষোভে শ্বশুর বাড়িতে আগুন দিলেন জামাই - ২৪ ঘন্টাই খবর

চাঞ্চল্যকরঃ স্বামীকে তালাক, ক্ষোভে শ্বশুর বাড়িতে আগুন দিলেন জামাই

  • আপডেট করা হয়েছে: শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮৮ বার পঠিত

আরিফ হোসেন, চরফ্যাসন (ভোলা) থেকে: ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার দুলারহাট থানার আহাম্মদপুরে স্বামী একরামের নির্যাতন সইতে না পেরে তালাক দিয়েছে স্ত্রী আকলিমা বেগম। তালাক দেওয়ার

কথা শুনে স্বামী একরাম ক্ষোভে স্ত্রী আকলিমার বাবার ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলেছে বলে অভিযোগ করেন আকলিমার বাবা আঃ কাদের। বৃহস্পতিবার উপজেলার আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের এ ঘটনা ঘটে।

একরাম আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মোঃ জয়নুল আবেদীনের ছেলে। আকলিমা বেগম একই এলাকার আঃ কাদেরের মেয়ে। শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) আকলিমার

বাবা আঃ কাদেরের অভিযোগ করেন, তার মেয়ে আকলিমার সাথে আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের জয়নুল আবেদীনের ছেলে একরামের সাথে ৪ বছর পূর্বে বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে আকলিমাকে বিভিন্ন সময় নির্যাতন করে একরাম। আকলিমা নির্যাতন সইতে না পেরে স্বামী একরামকে স্বেচ্ছায় তালাক দেন। একরাম তালাক মেনে না নিয়ে আকলিমা ও তার

বাবা আঃ কাদেরেকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। এবং ঘটনার ১৫দিন পূর্বে বসত ঘর পুড়িয়ে ফেলার হুমকি দেয় একরাম। বুধবার একরামের ভয়ে আঃ কাদের তার মেয়ে আকলিমাকে নিয়ে ঢাকাতে যান।

বৃহস্পতিবার লঞ্চ থেকে নেমেই ফোনে খবর পায় তার গ্রামের বসত ঘরে আগুন লেগেছে। ওই দিন লঞ্চে আবার গ্রামের বাড়ীতে ফিরেন কাদের। এসে দেখেন তার বসত ঘরের অধিকাংশ পুড়ে গেছে। এলাকার লোকজন আগুন দেখে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।

প্রত্যক্ষদর্শী আমিরজান জানান, বৃহস্পতিবার আমিরজান ফজরের আজানের সময় ঘুম থেকে উঠে দেখে পাশের বাড়ীতে আঃ কাদেরের বসত ঘরে আগুন জ্বলছে। পরে আমিরজানের ডাক চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে আগুন নিয়েন্ত্রনে

আনেন। অভিযুক্ত একরাম জানান, তার স্ত্রী আকলিমা তাকে তালাক দিয়েছে। তবে আগুন দিয়ে আকলিমার পিতার বসত ঘর পুড়িয়ে ফেলেছে এমন প্রশ্নে একরাম জানান, ঘটনার দিন একরাম ঢাকাতে চলে যায়। পরক্ষনে ফোন দিয়ে বলে সে ঘটনার দিন

এলাকায় ছিল এবং এলাকার প্রভাবশালীদেরে আত্বীয় পরিচয় দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যায় একরাম। দুলারহাট থানার ওসি আনোয়ারুল হক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ ঘটনায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com