1. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
কাবুলের রাস্তায় পানির দরে বিক্রি হচ্ছে টিভি-ফ্রিজ-কার্পেট - ২৪ ঘন্টাই খবর
শিরোনাম:
আজকেও হেরে যাবো ভেবেছিলেন: তামিম! মাত্র পাওয়াঃ হু হু করে বাড়েই চলেছে চালের দাম জেনেনিন শেষ আপডেট! ৩০০ করে হারার পর ২৫০ রান মনে হয় ২০০: তামিম অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্য, পথে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন দিনমজুর, পরিচয় রাখতে চান গোপন এই মাত্র পাওয়াঃ প্রাইমারির শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও কিন্তু কেন? অবশেষে মাইলফলকের ম্যাচে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল টাইগাররা গরম খবরঃ সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন নির্দেশনা জারি! শত চেষ্টার পর জয়ের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ জিনিসের দাম বাড়ায় কেউ তো মারা যায়নি:পরিকল্পনামন্ত্রী! একশ’র আগেই জিম্বাবুয়ের নয় উইকেট গুড়িয়ে দিলো বাংলাদেশ

কাবুলের রাস্তায় পানির দরে বিক্রি হচ্ছে টিভি-ফ্রিজ-কার্পেট

  • আপডেট করা হয়েছে: শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩১২ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা: গত মাসে তালেবান দ্বিতীয় দফায় আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর চরম অর্থনৈতিক দুরাবস্থায় পড়েছে দেশটির জনগণ। অনেকেই না খেয়ে দিন পার করছেন। কেউ কেউ মরিয়া হয়ে পালাতে চাইছেন যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি থেকে। খাবার জোটাতে কিংবা দেশ ছাড়ার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ সংগ্রহ করতে তারা বিক্রি করে দিচ্ছে টেলিভিশন, কার্পেট কিংবা ফ্রিজের মতো আববাবপত্র।

রাজধানী কাবুলের জনগণ তাদের নিত্য ব্যবহার্য জিনিসপত্র বিক্রির জন্য রাস্তাতেই বাজার বসিয়েছে বলে স্থানীয় টোলো নিউজ শুক্রবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

বিভিন্ন দামি জিনিসপত্র তারা পানির দামে ছেড়ে দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

লাল গুল নামে এক দোকানদার টোলো নিউজকে জানান, এক লাখ আফগানি দামের বাড়ির বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র মাত্র ২০ হাজার আফগানিতে ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

লাল গুল জানান, আমি ২৫ হাজার আফগানি দিয়ে ফ্রিজ কিনেছিলাম। সেই ফ্রিজ বিক্রি করেছি পাঁচ হাজার আফগানিতে। আমার কিছুই করার নেই। এসব না বেচলে আজ রাতে আমার বাচ্চারা খাবার পাবে না।

কাবুলের চমন-ই-হোজরি পার্কে যাওয়ার রাস্তায় পাওয়া যাচ্ছে কার্পেট, ফ্রিজ এমনকি টেলিভিশন সেটও।

মোহাম্মদ আগা নামে সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা টোলো নিউজকে নিজের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের ব্যাপারে জানান। তিনি গত ১০ দিন ধরে একটি মার্কেটে কাজ করছেন। কিন্তু তাকে বেতনও দেওয়া হয়নি। তিনি কী করবেন ভেবে পাচ্ছেন না।

একই ঘটনা জানালেন মেরাজুদ্দিন নামে কাবুলের আরেক বাসিন্দা। তিনি জানান, আমি একজন ইঞ্জিনিয়ার। আমার ছেলেও ভূতত্ত্ব অনুষদ থেকে স্নাতক করেছেন। কিন্তু আমরা দুজনই এখন বেকার। আমরা এখানে এসেছি কিছু জিনিস বিক্রি করে খাবারের জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com