1. atikurrahman0.ar@gmail.com : MD : MD Atikurrahaman
  2. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  3. mbbrimon@gmail.com : MBB Rimon : MBB Rimon
  4. shamimulislamtanvirrana@gmail.com : MD Tanvir Islam : MD Tanvir Islam
  5. shafiulislamtanzil@gmail.com : Safiul Islam Tanzil : Safiul Islam Tanzil
 

এবার নতুন করে সাধারণ ছুটিকে না বাড়িয়ে যা ভাবছে সরকার

  • প্রকাশিত: ১০:০৪ am | সোমবার ১১ মে, ২০২০
  • ২৬২৯ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা:
এবার নতুন করে সাধারণ ছুটিকে না বাড়িয়ে যা ভাবছে সরকার।করোনার ম’হামারিতে আক্রান্ত ও মৃ’তের সংখ্যা প্রতিদিনই উ’দ্বেগজনক হারে বাড়ছে। যার ফলে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুর করে আফিস আ’দালত কয়েক দফায় বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। যদিও ঈদ সামনে রেখে আগামী ১০ মে থেকে

সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিংমল খুলে দে’য়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।তবে এবার সাধারণ ছুটি না রেখে মানুষকে সচেতন করে স্বাভাবিক কাজকর্ম ও জনজীবন সচল করার কথা ভাবছে সরকার। সরকারি দলে নেতারা বলছেন,

মুখে মাস্ক পরা,সাবান দিয়ে ঘন ঘন হাত ধোয়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অভ্যাস সৃষ্টি করার মাধ্যমে মানুষের মাঝে করোনা আ’তঙ্ক কমে যাবে। একইসঙ্গে দেশের অর্থনীতির চাকা ও সব শ্রেণি-পেশার মানুষের জীবন-জীবিকা সচল রাখার জন্য পরবর্তী মেয়াদে সাধারণ ছুটি না বাড়ানো

নিয়ে চিন্তা করা হচ্ছে।ক্ষ’মতাসীন দলের
নেতারা বলছেন, মানুষকেও বাঁচাতে হবে, অর্থনীতির চাকাও সচল রাখতে হবে। এ ধারণা থেকে নভেল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সাধারণ ছুটি পরিহার করার পথে যেতে চায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার। সাধারণ ছুটি আরো দীর্ঘমেয়াদি

হলে অর্থনীতির ওপর দারুণভাবে প্রভাব পড়বে। তাই সবকিছু থামিয়ে দিয়ে আর বেশিদিন থাকতে চাচ্ছে না সরকার। এরই মধ্যে সরকার সীমিত আকারে বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান, পোশাক কারখানাও খুলে দিয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে খোলা হচ্ছে দোকানপাটও। এ ব্যাপারে সরকারের

একজন মন্ত্রী বলেন, সাধারণ ছুটি বা লকডাউন দিয়ে লাগাম টানা সম্ভব হচ্ছে না নভেল করোনাভাইরাসের। আবার সাধারণ জনগণকেও ঘরে আটকে রাখা যাচ্ছে না। অন্যদিকে বিশ্বের অন্য দেশগুলোও এখন লকডাউনের বিকল্প ভাবতে শুরু করেছে।

উন্নত দেশগুলোও অর্থনীতির হু’মকির কথা ভাবতে শুরু করেছে। সেই চিন্তা থেকেই ইতালি, স্পেনসহ কিছু দেশ এরই মধ্যে ল’কডাউন শিথিলও করেছে। নভেল করোনা’ভা’ইরাস মোকাবেলায় এখনো কোনো ভ্যা’কসিন আবিষ্কার সম্ভব হয়নি।

ফলে এ দুর্যোগ আমাদের আরো ভোগাবে। এ পরিস্থিতিতে সরকারকে করোনা মোকাবেলায় নতুন কিছু ভাবতে হচ্ছে।আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর একজন সদস্য বলেন, নভেল করোনাভা’ইরাস মোকাবেলায় সাধারণ ছুটি বা লকডাউনের বিকল্প পদ্ধতি কী হতে পারে- সে প্রক্রিয়া নিয়ে ভাবছে সরকার। মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি

মেনে চলতে অভ্যস্ত হতে হবে। সচেতন, সতর্কভাবে স্বাভাবিক কাজে নিশ্চয়ই ফিরতে হবে। তিনি বলেন, পৃথিবী থেকে নভেল করোনাভাইরাসের প্রা’দুর্ভাব কখন বিদায় নেবে সেটা নিয়ে স’ন্দেহ আছে। কারণ এখনো এর কোনো প্রতিষেধক আ’বিষ্কার হয়নি। কয়েকটা আবিষ্কারের কথা বললেও

সেটার এখন পর্যন্ত কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই। বিগত শতাব্দীতে যে স্প্যানিশ ফ্লু মহা’মারীর প্রতিষেধক আবিষ্কার হতে প্রায় ১০ বছ’রের মতো সময় লেগেছিল। এখন বিজ্ঞান এগিয়ে গেছে, তাই হয়তো কম সময় লাগবে। কিন্তু আমাদের তো থেমে থাকলে চলবে না। সচেতন হয়ে সবাইকে

নিজের কাজ করতে হবে। জীবন-জীবিকা চালু রাখতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, করোনা মোকাবেলায় কী করা যায়, তা নিয়ে প্রতিনিয়ত ভাবছেন প্রধানমন্ত্রী। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে কী উপায়ে পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলা করা হচ্ছে, সে বিষয়গুলোও তিনি পর্যালোচনা

করছেন। এছাড়াও দেশী-বিদেশী গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ- সং’ক্রান্ত প্রতিবেদন, সাময়িকী, গবেষকদের গবেষণার অগ্রগতি সবকিছু নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি নিজেও বিকল্প উপায়ে কীভাবে করোনা মোকাবেলা করা যায়,