1. atikurrahman0.ar@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. Mijankhan298@gmail.com : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
আওয়ামী লীগ নেতার লাশ কাঁধে নিলেন রেলমন্ত্রী - Online newspaper in Bangladesh

আওয়ামী লীগ নেতার লাশ কাঁধে নিলেন রেলমন্ত্রী

  • আপডেট করা হয়েছে: সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৭৪ বার পঠিত

বিজয়ের বাংলা: রেলপথমন্ত্রী এডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন পঞ্চগড়ের প্রবীণ রাজনীতীবিদ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র সহ-সভাপতি আব্বাস আলীর জানাযা শেষে তার লাশ কাঁধে করে কবরস্থানের দিকে নিয়ে যায়।

এ সময় তার সাথে খাটিয়ার এক পাশ কাঁধে নেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম পল্লব। লাশ কাঁধে নিয়ে জানাযা মাঠ থেকে বয়ে নিয়ে কবরস্থানের সামনে মাদ্রাসার মাঠে নিয়ে যায় মন্ত্রী। গতকাল রোববার বিকেলে পঞ্চগড় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে প্রয়াত ওই নেতার মরদেহ মন্ত্রী কাঁধে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে।

রেলপথমন্ত্রী রাজধানী ঢাকা থেকে ফিরে রোববার বিকেলে আব্বাস আলীর জানাযা নামাজে যোগ দিয়ে ওই নেতাকে জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করেন। একই সাথে আব্বাস আলীর রাজনৈতিক জীবনের নানা স্মৃতি তুলে ধরেন মন্ত্রী।

প্রয়াত আব্বাস আলীর জন্য মুনাজাতে অংশ নেয় মন্ত্রী। এ সময় পঞ্চগড় -১ আসনের সাংসদ মজাহারুল হক প্রধান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইাউসুফ আলী সহ প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারী, উপজেলা চেয়ারম্যানগণ সহ জেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা আওয়ামীলীগ, পৌর আওয়ামীলীগের কয়েক হাজার নেতা কর্মী উপস্থিত ছিল।

মন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলীর পর পৌর আওয়ামীলীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ সেচ্ছাসেবকলীগ অঙ্গ ও সহযোগী সংঠনগুলো আব্বাস আলীকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়। এর আগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন আব্বাস আলী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

গত ৮ জুলাই আব্বাস আলী বাড়ি থেকে বের হয়ে একটি অটোভ্যানে চড়ে পঞ্চগড় বাজারে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলের সাথে সংঘর্ষে তিনি মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছিলেন। সেই থেকে তিনি অসুস্থ্য ছিলেন । রংপুর ও ঢাকার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগনের পরামর্শে তার একটি অপারেশন হওয়ার কথা ছিল। রেলপথমন্ত্রী তার অপারেশনের ব্যবস্থাও করেছিল কিন্তু আব্বাস আলীর পরিবার অপারেশন করতে দেয়নি।

সাংসদ মজাহারুল হক প্রধান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এবং পঞ্চগড়ের বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সুশীল সমাজ বলছেন একজন মন্ত্রী জেলা পর্যায়ের একজন আওয়ামীলীগ নেতার লাশ কাঁধে নিয়ে বয়ে যাওয়ার ঘটনায় প্রশংসা প্রকাশ করেছেন ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2021
Site Developed By Bijoyerbangla.com