1. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
অবশেষে যে দুই কারণে এমন হার, জানালেন তামিম - ২৪ ঘন্টাই খবর
শিরোনাম:
অবিশ্বাস্যঃ ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটের জন্য ১৩৯ বছরের ইতিহাস বদলাচ্ছে ইংল্যান্ড এইমাত্র পাওয়াঃ এশিয়া কাপের স্কোয়াডে নেই লিটন, সোহান ও ইয়াসির এইমাত্র পাওয়াঃ সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষা শুরু কাল এবার আশরাফুলের রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়লেন মুশফিকুর রহিম মাত্র পাওয়াঃ এবার দারুণ সুখবর পেলেন ইন্জুরিতে থাকা লিটন দাস এইমাত্র পাওয়াঃ সপ্তাহে এক দিন এলাকাভিত্তিক শিল্পকারখানা বন্ধ, প্রজ্ঞাপন জারি ব্রেকিং নিউজঃ সাবেক ভিপি নুরকে ৭ দিনের মধ্যে আদালতের জরুরি নির্দেশ! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বিপর্যয়ের কারণ, নতুন ক্রাইসিসম্যানের আবির্ভাব মাত্র পাওয়াঃ সরকার জ্বালানির দাম বৃদ্ধি থেকে সরে আসবে কিনা, যা বললেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব অবশেষে সাকিব বেটউইনারের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে রাজি

অবশেষে যে দুই কারণে এমন হার, জানালেন তামিম

  • আপডেট করা হয়েছে: শনিবার, ৬ আগস্ট, ২০২২
  • ২৫ বার পঠিত

জিম্বাবুয়ে সফরে ওয়ানডেতেও বাংলাদেশের ভাগ্য ফেরেনি। সিরিজের প্রথম ম্যাচেই হার। সেই হারও জিম্বাবুয়ের কাছে ৯ বছরের বেশি সময় এবং টানা ১৯ ম্যাচ জয়ের পর। সেটিও আগে

ব্যাট করে, ৩০০ পেরোনো স্কোর গড়ে। হারের পর বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেছেন, ব্যাটিংয়ে ১৫-২০ রান কম করে ফেলেছেন তারা। সঙ্গে তামিম দেখছেন ক্যাচ হাতছাড়া করার দায়ও। বেশ কিছুদিন ধরেই ক্যাচ

হাতছাড়া করার প্রসঙ্গটি ঘুরেফিরে আসে বাংলাদেশের ফিল্ডিংয়ে। সেটির মাশুল কোনো না কোনো দিন দিতেই হতো, সেটিও মনে করিয়ে দিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক। তামিম বলেন, ‘আগে

ব্যাটিং করলে, এই কন্ডিশনে প্রথম ১০-১২ ওভারে বোলারের জন্য কিছু থাকে। এরপর সহজ হয়ে যায়। আমরা সেটা ভালোই সামাল দিই। আমাদের জুটিও ভালো হয়েছিল। কিন্তু শেষটা

ভালো হয়নি।’তামিমের আক্ষেপ, অমন একটা ভিতে দাঁড়িয়ে অতিরিক্ত কিছু রান আদায় করে নিতে হতো তাদের, ‘আমাদের আরও ১৫-২০ রান বেশি করা উচিত ছিল। আমরা ১ উইকেটে ২৫০ রানের

মতো অবস্থায় ছিলাম। এ অবস্থায় থাকলে একটু দ্রুত রান তোলা দরকার ছিল, যেন আমরা ওই অতিরিক্ত ১৫-২০ রান করতে পারি।’ইনিংসের মাঝপথে ৩০৩ রানের

স্কোরকে অবশ্য খুব একটা কম মনে হওয়ার কারণ ছিল না। জিম্বাবুয়ে নিজেদের ইতিহাসে এর আগে ৩০০ বা এর বেশি রান তাড়া করে জিতেছে মাত্র দুবার। এরপর

প্রথম ২ ওভারে ২ উইকেট তুলে নেওয়ার পর তো বোলিং-ফিল্ডিংয়ে আরও উজ্জীবিত হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু তাদের শরীরী ভাষায় সেটি মনে হয়নি। যে দুজন শেষ

পর্যন্ত বাংলাদেশের হন্তারক হয়ে উঠলেন, সেই সিকান্দার রাজা ও ইনোসেন্ট কাইয়াদুজনই জীবন পেয়েছেন বাংলাদেশের পিচ্ছিল ফিল্ডিংয়ের সৌজন্যে। তামিম এ প্রসঙ্গে

যেটি বললেন, সেটির অর্থ হতে পারে এমন-প্রতিদিন ‘ভুল’ করে পার পাওয়া যাবে না। তার ভাষায়, ‘প্রতিদিন আমি ক্যাচিংয়ের কথা বলি। কোনো না কোনো দিন তো

এটা আমাদের হারের কারণ হতো। এটাই হয়তো সেই দিন ছিল। কারণ, টি-টোয়েন্টিতে আমরা অনেকবার ক্যাচ ফেলেছি। কিন্তু ম্যাচ জিতে গিয়েছি। কিন্তু যখন এমন ভালো উইকেটে আপনি ৪টা ক্যাচ

ফেলবেন, তাহলে আপনি বেশি ম্যাচ জিতবেন না। এখন মনে হচ্ছে। এটা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে পরের ম্যাচের আগে।’শুধু ক্যাচিং নয়, তামিম হতাশ পুরো ফিল্ডিং নিয়েই, ‘অনেক সহজ

রান দিয়েছি। এই মাঠে ২ রান হবে। কারণ, এক পাশটা বিশাল। এটা নিয়ে আমি ভাবছি না। কিন্তু সহজগুলো, যেগুলো সহজেই ডট বল হতে পারত, সেগুলো থামাতে পারলে আমরা আরও চাপ সৃষ্টি করতে পারতাম। এগুলো অবশ্যই কষ্ট দেয়।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com