1. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  2. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  3. [email protected] : Bijoyerbangla News : Bijoyerbangla News
  4. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
  5. [email protected] : বিজয়ের বাংলা : বিজয়ের বাংলা
অবশেষে ইনোসেন্ট-রাজার ব্যাটে জিম্বাবুয়ের প্রতিরোধ বেষ্টনী - ২৪ ঘন্টাই খবর
শিরোনাম:
নতুন টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আইসিসি থেকে চরম দুঃসংবাদ পেলো বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম অবিশ্বাস্যঃ ১১০ বছর বয়সেও খালি চোখে করেন কোরআন তেলাওয়াত মাত্র পাওয়াঃ ভারত-পাকিস্তান লড়াইয়ে কার পাল্লা ভারি, জানালেন পন্টিং ‘মানুষ কষ্টে আছে, শেখ হাসিনার ঘুম নেই’বললেন ওবায়দুল কাদের মাথার ঘাম পায়ে ফেলেও হেরেই চলেছে টি-টোয়েন্টির রাজারা এইমাত্র পাওয়াঃ বাংলাদেশে যুক্ত হচ্ছে ভারতীয় আদানির বিদ্যুৎ ফাঁস হয়ে গেল মেসি যে কারণে জায়গা পেলেন না ব্যালন ডি’অরের তালিকায় এইমাত্র পাওয়াঃ ডিপ্লোমা কোর্স তিন বছর করা নিয়ে নতুন তথ্য জানালেন শিক্ষামন্ত্রী! মাত্র পাওয়াঃ শিক্ষা মানে না কোনও বাধা, অচল পা নিয়ে গুচ্ছের পরীক্ষায় শাহনাজ, পড়তে চান কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে

অবশেষে ইনোসেন্ট-রাজার ব্যাটে জিম্বাবুয়ের প্রতিরোধ বেষ্টনী

  • আপডেট করা হয়েছে: শুক্রবার, ৫ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৮ বার পঠিত

বাংলাদেশের দেয়া ৩০৪ রানের লক্ষ্য ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেললেও ইনোসেন্ট কাইয়া ও সিকান্দার রাজার ব্যাটে প্রতিরোধ বেষ্টনী গড়েছে জিম্বাবুয়ে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুজনে মিলে করেছেন ১০১ রানের জুটি। কাইয়া ও রাজা

দুজনেই পেয়েছেন হাফসেঞ্চুরির দেখা। ৩ উইকেটে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ এখন ১৬৩। কাইয়া ৬৮ রান ও রাজা ৬৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। জয়ের জন্য তাদের আরও দরকার ১৪০ রান। বাংলাদেশের দরকার ৭ উইকেট। জিম্বাবুয়ে

শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন টাইগার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তার শিকারে পরিণত হয়ে ফিরে যান রেগিস চাকাভা। ফিজের অফ কাটার চাকাভার

ব্যাটে লেগে চলে যায় লেগ স্টাম্পে। ৬ বলে মাত্র ২ রান করেন জিম্বাবুইয়ান ওপেনার। ফিজের পর বোলিংয়ে এসে উইকেট নেন শরিফুল ইসলামও। শরিফুলের বলের

মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে ক্যাচ দেন তারিসাই মুসাকান্দা। এরপর ইনোসেন্ট কাইয়া ও ওয়েসলে মেধেভেরে মিলে গড়েন ৫৬ রানের জুটি। ধীরে ধীরে ইনিংস বড়

করছিলেন এ দুজন। ঠিক তখনই টাইগারদের হয়ে ব্যাকথ্রু এনে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। মাহমুদউল্লার কাছ থেকে বল পেয়ে মেধেভেরেকে রানআউট করেন তিনি। ২৭ বলে ১৯ রান করেন

মেধেভেরে। টস হেরে আগে ব্যাট করে ২ উইকেটের বিনিময়ে ৩০৩ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। শুরুটা করেছিলেন তামিম-লিটন, শেষটা করেন মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিক। তিন বছর পর মাঠে ফেরা

বিজয়ও খেল দেখালেন। স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের পর প্রিয় ফরম্যাটে খেলতে নেমেই চেনা ছন্দে ছিল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের

প্রথম চারজন ব্যাটারই ফিফটির দেখা পান এ ম্যাচে। এমন ঘটনা বাংলাদেশের ওয়ানডে ইতিহাস দ্বিতীয়বার দেখার সুযোগ পেয়েছে। ওপেনিংয়ে নেমে তামিম ইকবাল ও লিটন মিলে

গড়েন শত রানের জুটি। তাদের জুটি ভাঙে তামিম ৬২ রান করে বিদায় নিলে। লিটন রিটায়ার্ড হার্ট হওয়ার আগে করেন ৮১ রান। এরপর এনামুল বিজয়ের ব্যাট

থেকে ৭৩ ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাট থেকে ৫২ রান আসে। মাহমুদউল্লাহ ১২ বলে করেন ২০ রান। জিম্বাবুয়ের হয়ে একটি করে উইকেট নেন ভিক্টর নাইয়াচি ও সিকান্দার রাজা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর পড়ুন
© All rights reserved 2022
Site Developed By Bijoyerbangla.com